Friday, July 19
Shadow

Tag: শিশু

শিশুদের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে অবহেলা নয়

শিশুদের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে অবহেলা নয়

Health and Lifestyle, Kids Health
ইউনিসেফের তথ্যমতে, সারা বিশ্বে প্রায় ২২০ কোটিরও বেশি হচ্ছে শিশু। করোনা মহামারির কারণে স্কুল-কলেজ দীর্ঘদিন বন্ধ থাকার ফলে শিশুদের মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে দেখা দিয়েছে প্রশ্ন। দুশ্চিন্তা, অস্থিরতা এবং বিষণ্নতাসহ নানা ধরনের মানসিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। সেইভ দ্য চিলড্রেন করোনা মহামারি শুরু হওয়ার পর ৪৬টি দেশের ১৩২৭৭ জন শিশু এবং ৩১৪৮৩ জন শিশুর অভিভাবকের ওপর একটি গবেষণা পরিচালনা করে। গবেষণাতে শিশু-কিশোরদের মানসিক স্বাস্থ্যের ওপর আশঙ্কাজনক ফলাফল বের হয়ে আসে- * ৩২ শতাংশ শিশু নিজ ঘরে পারিবারিকভাবে নির্যাতনের শিকার। * ৮৩ শতাংশ শিশুর মাঝে অবসাদ, বিষণ্নতা এবং বিভিন্ন নেতিবাচক প্রভাব তৈরি হয় এবং মাত্র ৪৬ শতাংশ পিতামাতা এবং অভিভাবক এ বিষয়গুলো খেয়াল করেন। * যেসব শিশু তাদের বন্ধুদের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন অবস্থায় ছিল তাদের মাঝে অধিক দুশ্চিন্তা এবং অসুখী মনোভাব তৈরি হয়। যেসব শিশুর স্কুল ১-৪ সপ্তা...
শিশুর পড়াশোনা : শিশুর জীবনে স্কুলের প্রয়োজনীয়তা

শিশুর পড়াশোনা : শিশুর জীবনে স্কুলের প্রয়োজনীয়তা

Education
স্কুল বা বিদ্যালয় শিক্ষা ব্যবস্থার একটা অংশ মনে হলেও, এটা আসলে একটা ট্রেনিং সেন্টার বা প্রশিক্ষণ কেন্দ্র। স্কুল একটা শিশুকে শুধু পাঠ্যবইয়ের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখে না, শিশুর পড়াশোনা ও এর সঙ্গে সহমর্মিতা, সময়ানুবর্তিতা, সাম্প্রদায়িকাতা, নিয়মানুবর্তিতার মত নানান চারিত্রিক গুণাবলীল। স্কুলে বিশেষ করে প্রাইমারী স্কুলে যে পড়া থাকে তার জন্য আসলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের দরকার হয় না।  একজন মা বা গৃহ শিক্ষকই তা একজন শিশুকে পড়িয়ে দিতে পারেন। বরং বছরের অর্ধক সময়েই একটা শ্রেণীর পড়া শেষ করায় ফেলতে পারেন। এখন প্রশ্ন আসতে পারে,” তাহলে প্রাইমারী স্কুলে পাঠানোর কি প্রয়োজন? বাসায় পড়াই, স্কুলে যেয়ে শুধু পরীক্ষা দিবে।“ কিন্তু না, শিশুকে স্কুলে পাঠানোর প্রয়োজন আছে। কারণ স্কুল শুধু লেখা পড়ার জন্য না, মানসিক বিকাশের জন্যও অনেক জরুরী। বাচ্চারা নরম ভেজা মাটির মতো। এ সময় যেভাবে তাদের তৈরী করা হয়, ভবিষ্যতেও তারা সে...
নবজাতকের গোসল : কখন করাবেন, কখন করাবেন না

নবজাতকের গোসল : কখন করাবেন, কখন করাবেন না

Cover Story, Health, Health and Lifestyle
অনেকে প্রশ্ন করেন, নবজাতকের গোসল কখন করাতে হবে। কিংবা সিজারে বাচ্চা হলে তাকে কতক্ষণ পর গোসল করাতে হবে? এ বিষয়ে বিস্তারিত পরামর্শ দিয়েছেন স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. নাঈমা সুলতানা। নবজাতককে প্রথম তিন দিন গোসল করানো যাবে না। সেটা নরমাল কিংবা সিজারেই হোক। আলাদা কোনো নিয়ম নেই। জন্মের পর থেকেই তার জন্য নিয়ম কানুন সব স্বাভাবিক।   নবজাতকের গোসল ও তাপমাত্রা অনেকে জানতে চান নবজাতকের গোসল করানোর সময়  কত তাপমাত্রার পানি দিয়ে গোসল করাতে হবে?  কুসুম গরম নাকি ঠান্ডা? এক্ষেত্রে পরামর্শ হলো, যে তাপমাত্রা সহনীয় মনে হয়, সেটা। তবে খেয়াল রাখতে হবে, নবজাতকের গোসল যেন দীর্ঘসময় ধরে না হয়। শীতকালে কোনো বাচ্চার জন্ম হলে আমরা মায়েদের পরামর্শ দিই, নবজাতকের গোসল এর সময় শিশুকে টাওয়েলে কিছুটা পেচিয়ে রাখতে। এতে তার শরীরের তাপমাত্রা ঠিক থাকবে। অনেকে গরমকালে বাচ্...
শিশুদেরও ডায়াবেটিস হবে যে খাবারে!

শিশুদেরও ডায়াবেটিস হবে যে খাবারে!

Cover Story, Health and Lifestyle, Kids Health
শিশুদেরও ডায়াবেটিস হবে যে খাবারে! অস্বাস্থ্যকর খাবার এবং পানীয় শিশুদের দাঁতের ক্ষয়রোগের কারণ হতে পারে। উচ্চ মাত্রায় শর্করা সমৃদ্ধ খাবার যা শিশুদের মধ্যে দাঁতের ক্ষয়রোগের কারণ হয়ে দাঁড়ায়। যেসব শিশুরা বেশি পরিমাণে সোডা পান করে তাদের মধ্যে দাঁতের ক্ষয়রোগ ও মেদবহুলতার প্রবণতা দেখা যায়। এতে শিশুদের পরবর্তী জীবনে, অস্টিওপরোসিস ও ডায়াবেটিসের দিকে ঠেলে দেয়। শিশুদের সেইসব খাবার ও পানীয় এড়িয়ে চলা উচিৎ যা তাদের দাঁতের ক্ষয় করে। আসুন জেনে নেই সেইসব খাবার ও পানীয় গুলোর নামঃ ১। জুসঃ জুসে প্রচুর পরিমাণে শর্করা রয়েছে যা শিশুদের দাঁতের ক্ষয়রোগের কারণ। চিনি বা শর্করা দাঁতের পক্ষে ক্ষতিকর। যে ব্যাকটিরিয়াগুলি শর্করা খেয়ে থাকে, সেগুলিই দাঁতে ক্যাভিটির সৃষ্টি করে। এই ব্যাকটিরিয়াগুলি মাড়ির ক্ষেত্রেও অস্বস্তির সৃষ্টি করে যা পরে অনেক রকমের মাড়ির রোগ সৃষ্টি করে। ২। সোডাঃ সোডা পান করলে, দাঁতের এনামেল...
বারডেম হাসপাতালের শিশু বিভাগের প্রধান ডা. আবিদ হোসেন মোল্লার পরামর্শ : শিশুর নিউমোনিয়া না ব্রংকিওলাইটিস

বারডেম হাসপাতালের শিশু বিভাগের প্রধান ডা. আবিদ হোসেন মোল্লার পরামর্শ : শিশুর নিউমোনিয়া না ব্রংকিওলাইটিস

Cover Story, Health and Lifestyle, Kids Health
শিশুর নিউমোনিয়া না ব্রংকিওলাইটিস ভাইরাসজনিত শ্বাসতন্ত্রের রোগ ব্রংকিওলাইটিস , যা শীতকালে বেশি হয়। এই রোগে শিশুরা শ্বাসকষ্ট ও সর্দি-কাশির মতো সমস্যায় বেশি ভোগে। অনেকেই একে নিউমোনিয়া ভেবে অ্যান্টিবায়োটিক প্রয়োগ করেন, যার কোনো প্রয়োজন নেই। পরামর্শ দিয়েছেন বারডেম জেনারেল হাসপাতালের শিশু বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. আবিদ হোসেন মোল্লা দুই বছরের বেশি বয়সী শিশুর ব্রংকিওলাইটিস হয় না। শিশু হাত-পা ছড়িয়ে খেলা করলে ধরে নিতে হবে, সে স্বাভাবিক ও সুস্থ অবস্থায় আছে। ফুসফুসের ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র বায়ুনালি ভাইরাসের মাধ্যমে সংক্রমিত হলে শিশুর ব্রংকিওলাইটিস হয়। সাধারণত রেস্পিরেটরি সিনসাইটিয়াল ভাইরাস, রাইনো ভাইরাস, ইনফ্লুয়েঞ্জা ভাইরাসের সংক্রমণে এই রোগ হয়। এতে বায়ুনালিতে প্রদাহ সৃষ্টি হয়ে ফুলে যায় এবং মিউকাস নামক পদার্থ দ্বারা পর...
সুস্থ ও স্বাভাবিক নবজাতকের বৈশিষ্ট্য

সুস্থ ও স্বাভাবিক নবজাতকের বৈশিষ্ট্য

Cover Story, Health and Lifestyle
সুস্থ ও স্বাভাবিক নবজাতকের বৈশিষ্ট্য   ১। নয় মাস ১০ দিন বা ৩৮-৪২ সপ্তাহ বা ২৮০ দিন পরযন্ত মায়ের গর্ভে থেকে জন্ম গ্রহণ করবে। ২। জন্ম ওজন হতে হবে ২৫০০ গ্রাম থেকে ৩৯০০ গ্রাম পরযন্ত। ৩। দৈর্ঘ্য ৪৭-৫২ সেন্টিমিটার এবং মাথার পরিধি ৩৩-৩৬ সেন্টিমিটার। ৪। নবচাতকের গায়ের স্বাভাবিক রং গোলাপি। তবে অবশ্যই মা বাবার গায়েল রং-এর উপর নির্ভর করে নবজাতক শিশুর শরীরের রং কিছুটা তারতম্য হতে পারে। ৫। স্বাভাবিক অবস্থায় একটি সুস্থ নবজাতক হাত-পা গুটিয়ে থাকে। বেদনাদায়ক উদ্দীপনায় মুখ বিকৃত করে চিৎকার করে। ৬। একটি সুস্থ নবজাতক প্রায় সারাদিনই ঘুমিয়ে থাকে। কারণ নবজাতকের মস্তিস্ক অপরিপক্ক থাকায় খুব সামান্যতেই সে ক্লান্ত হয়ে ঘুমিয়ে পড়ে। ৭। জন্মের পরপরই শিশু দেখতে পায়। হঠাৎ আলোর ঝলকানিতে সে চোখ বন্ধ করে ফেলে বা কেঁদে ওঠে কিন্তু কোনো বস্তুর দিকে সে তার দৃষ্টি স্থিরভাবে নিবদ্ধ করতে পারে না। বিন্তু...
শিশু খাচ্ছে কিন্তু বাড়ছে না

শিশু খাচ্ছে কিন্তু বাড়ছে না

Cover Story, Health and Lifestyle, Kids Health
  শিশু খাচ্ছে কিন্তু বাড়ছে না   অনেক শিশু আছে যাদের খিদের কমতি নেই। খাচ্ছেও অনেক, তবু শিশু ঠিকমত বাড়ছে না। যতই খাক না কেন, বেশির ভাগ সময় নানা ধরনের অপুষ্টিতে ভোগে এরকম শিশুরা। কেউ বা আবার আক্রান্ত হয় অ্যানিমিয়ায়। নানা ধরনের নানা মাত্রার অপুষ্টি এরকম শিশুর শরীরমনের স্বাভাবিক বিকাশে বিপরযয় ডেকে আনে। শিশু বাড়ে স্বাবাবিকের তুলনায় কম। শিশু বয়সে খাবারদাবারের প্রতি খুব বেশি মাত্রায় আগ্রহ থাকে অনেক শিশুরই। এরকম হতেই পারে, এর মধ্যে অস্বাভাবিকতার কিছু নেই। কোন কোন ‍শিশুর ‍খিদে বেশি চনমনে হতে পারে সমবয়স্ক অন্য শিশুর তুলনায়, এটাও স্বাভাবিক। যথেষ্ট খাওয়াদাওয়া করছে শিশু অথচ ভুগছে নানা ধরনের অপুষ্টিতে। বাড়ছে অন্যদের তুলনায় কম, এরকম ঘটনা কিন্ত আদৌ স্বাভাবিক নয়। এরকম শিশু বেশির ভাগ সময় নানা শারীরিক সমস্যায় একটানা ভুগতে থাকে। বিশেষ করে পেটের রোগে। এসময় শিশুকে ডাক্তার দেখানো প্রয়োজন। য...
শিশু কিছুই খায় না ? তাহলে করণীয়

শিশু কিছুই খায় না ? তাহলে করণীয়

Cover Story, Health and Lifestyle, Kids Health
  শিশু কিছুই খায় না ?   বড়দের মতোই শিশুর খাওয়া, না খাওয়ার ব্যাপারটাকে সরাসরি নিয়ন্ত্রণ করে মগজের সিংহবাগ জুড়ে থাকা সেরিব্রাল কর্টেক্স অংশটি। মগজের হাইপোথ্যালামাসে রয়েছে বিশেষ দুটি কেন্দ্র,‘ফিডিং সেন্টার’ আর ‘স্যাটাইটি সেন্টার’। পাকস্থলি ফাঁকা থাকলে, রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা কমতে থাকে। এভাবে কমতে থাকা রক্তের গ্লুকোজ মগজের ফিডিং সেন্টার‘কে উদ্দীপিত করে। ফিডিং সেন্টার-এর প্রভাবে তখন কর্টেক্স শরীরকে নির্দেশ দেয় দেড়ি না করে খেয়ে নিতে। শিশুর খিদে পায় ফিডিং সেন্টার উদ্দীপিত হলে, ফিডিং সেন্টার-এর নির্দেশে শিশু খেতে শুরু করে। পেট ভর্তি থাকলে ঠিক এর বিপরীত ঘটনাটি ঘটে। রক্তে গ্লুকোজের মাত্রা যথেষ্ট হওয়ায় ফিডিং সেন্টার-এর বদলে উত্তেজিত হয় স্যাটাইটি সেন্টার। এই কেন্দ্রটি সক্রিয় হলে শিশু খেতে চায় না। পেট খালি থাকলে শিশুর খিদে পাবে, শিশু খেয়ে নেবে। আর পেট ভরা থাকলে কিছুই খেতে চিইবে না...
ঢাকা শিশু হাসপাতালের শিশু কিডিনি রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মোহাম্মদ হানিফের পরামর্শ : শিশুকে অর্ধসিদ্ধ ফাস্ট ফুড নয়

ঢাকা শিশু হাসপাতালের শিশু কিডিনি রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মোহাম্মদ হানিফের পরামর্শ : শিশুকে অর্ধসিদ্ধ ফাস্ট ফুড নয়

Cover Story, Health and Lifestyle, Kids Health
ঢাকা শিশু হাসপাতালের শিশু কিডিনি রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. মোহাম্মদ হানিফের পরামর্শ : শিশুকে অর্ধসিদ্ধ ফাস্ট ফুড নয়   শিশুরা ফাস্ট ফুডে অভ্যস্ত। তারা ফুচকা, বার্গার, হটডগ, কাবাব ইত্যাদি পছন্দ করে। কিন্তু অনেক সময় দেখা যায়, চিকেন বা মাংসজাতীয় কিছু রান্নার সময় তাড়াহুড়া করতে গিয়ে ওপরের অংশ সিদ্ধ হয়ে গেলেও ভেতরের মাংস ভালোভাবে সিদ্ধ হয় না, কিছু অংশ কাঁচা থাকে। এখানে কিন্তু অনেক ধরনের ব্যাকটেরিয়া থাকে, যা স্বাস্থ্যের জন্য খুবই বিপজ্জনক। তাই এ বিষয়ে খুব সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে, যাতে কখনোই এ ধরনের অর্ধসিদ্ধ খাবার খাওয়া না হয়, বিশেষ করে শিশুদের বেলায়।   পরামর্শ দিয়েছেন : অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ হানিফ, বিভাগীয় প্রধান, শিশু কিডনি রোগ বিভাগ, ঢাকা শিশু হাসপাতাল   https://www.youtube.com/watch?v=Geg0SPadJxM&feature=youtu.be&fbclid=IwAR28UxjTLzBH6rq0RRf7t_WsGFM0...
সেন্ট্রাল হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. এ এফ এম সেলিমের পরামর্শ : শিশুর শারীরিক বৃদ্ধিতে গ্রোথচার্ট

সেন্ট্রাল হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ ডা. এ এফ এম সেলিমের পরামর্শ : শিশুর শারীরিক বৃদ্ধিতে গ্রোথচার্ট

Cover Story, Health and Lifestyle, Kids Health
শিশুর শারীরিক বৃদ্ধিতে গ্রোথচার্ট শিশুর দৈহিক বৃদ্ধি স্বাভাবিক হচ্ছে কি না, তা জানার জন্য শিশুর ওজন, দৈর্ঘ্য বা উচ্চতা মেপে নির্ধারিত গ্রোথচার্টে নিয়মিত চিত্রিত করতে হয়। এই চার্ট সম্পর্কে বিশদভাবে জানা দরকার। গ্রোথচার্ট, এর গুরুত্ব ও মাপার সঠিক পদ্ধতি নিয়ে লিখেছেন সেন্ট্রাল হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. এ এফ এম সেলিম   নবজাতক ভূমিষ্ঠের পর প্রথম সপ্তাহে ওজন কমে এবং দু-তিন সপ্তাহে ওজন স্থির থাকে। এরপর ধীরে ধীরে ওজন বাড়তে থাকে। প্রথম তিন মাসে প্রতিদিন গড়ে ২৫-৩০ গ্রাম করে ওজন বাড়ে। পরবর্তী মাসগুলোতে আরেকটু কম হারে ওজন বাড়তে থাকে, ৩-১২ মাস বয়স পর্যন্ত প্রতি মাসে গড়ে ৪০ গ্রাম ওজন বাড়ে। ৫-৬ মাস বয়সে শিশুর ওজন জন্ম ওজনের দ্বিগুণ হয়, এক বছরে তিন গুণ, দুই বছরে চার গুণ, তিন বছরে পাঁচ গুণ, পাঁচ বছরে ছয় গুণ এবং ১০ বছর বয়সে ১০ গুণ হয়। তবে জন্ম ওজনের পার্থক্যের কারণে ...
এ্যাপোলো হাসপাতালের পুষ্টিবিদ তামান্না চৌধুরীর পরামর্শ : জ্বর হলে খাবারদাবার

এ্যাপোলো হাসপাতালের পুষ্টিবিদ তামান্না চৌধুরীর পরামর্শ : জ্বর হলে খাবারদাবার

Cover Story, Health and Lifestyle
এ্যাপোলো হাসপাতালের পুষ্টিবিদ তামান্না চৌধুরীর পরামর্শ : জ্বর হলে খাবারদাবার জ্বরের সময় খাবারে যথেষ্ট অরুচি থাকে। কিন্তু জ্বর কমাতে বা নিয়ন্ত্রণে আনতে  কিছু খাবার দারুণ কার্যকর। এ বিষয়ে পরামর্শ দিয়েছেন এ্যাপোলো হসপিটালস্, ঢাকার প্রধান পুষ্টিবিদ তামান্না চৌধুরী   তরল খাবার জ্বরের সময় শরীর দ্রুত পানিশূন্য হয়ে পড়ে বলে তরল খাবার হজমে সহায়তা করতে, তাপমাত্রা স্বাভাবিক রাখতে, পানিশূন্যতা রোধ ইত্যাদিতে ভালো কাজ করে। তাই এ সময় অন্যান্য সময়ের চেয়ে বেশি পানি পান করা উচিত। পানি ছাড়া তরল খাবার হিসেবে যা যা খেতে পারেন তা হলো— ফলের রস :  বিশেষ করে ভিটামিন ‘সি’যুক্ত লেবু, আনারস, কমলা, মালটার মতো টকজাতীয় ফলের রস বেশ উপকারী। দিনে দুই থেকে তিনবার এসব ফলের রস পান করা সম্ভব হলে তা তাত্ক্ষণিক শক্তি জোগানোসহ জ্বরের সংক্রমণের বিরুদ্ধে সাহায্য করে। চিকেন স্যুপ : জ্বর হলে শরীরের ব...
পিজি হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল্লাহার পরামর্শ : কোন জ্বরে কী দাওয়াই

পিজি হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল্লাহার পরামর্শ : কোন জ্বরে কী দাওয়াই

Cover Story, Health and Lifestyle
কোন জ্বরে কী দাওয়াই এখন প্রায় ঘরে ঘরে জ্বর, সর্দি-কাশি হচ্ছে। অনেকে আক্রান্ত হচ্ছেন নিউমোনিয়ায়। আক্রান্তদের মধ্যে শিশু-কিশোরদের সংখ্যাই বেশি। তবে জ্বর নিয়ে ঘাবড়ানোর কিছু নেই। বিশ্রাম, সাধারণ পরিচর্যা ও কিছু ওষুধ সেবন করলে বেশির ভাগ জ্বর এমনিতেই সেরে যায়। লিখেছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. এ বি এম আবদুল্লাহ কোন জ্বরে কী দাওয়াই জ্বরের অনেক ধরন থাকে। তবে জ্বরকে ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন, ভাইরাল জ্বর এবং প্যারাসাইটিক জ্বর—সাধারণত এসব ভাগে ভাগ করা হয়। ব্যাকটেরিয়াল ইনফেকশন ব্যাকটেরিয়াগুলো শরীরের কোষের ভেতর লুকিয়ে থেকে ইমিউন সিস্টেমে চ্যালেঞ্জ সৃষ্টি করে। এগুলোর সংক্রমণে কান ও গলার ইনফেকশন, নিউমোনিয়া, ট্রাভেলার্স ডাইরিয়া, ইউরিনারি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন, নেফ্রাইটিস ইত্যাদির ফলে জ্বর হয়। রেসপিরেটরি ট্র্যাক্ট ইনফেকশন থে...
শিশুর ডায়রিয়া হলে অবশ্যই পালনীয়

শিশুর ডায়রিয়া হলে অবশ্যই পালনীয়

Cover Story, Health and Lifestyle, Kids Health
শিশুর ডায়রিয়া হলে অবশ্যই পালনীয় ডায়রিয়া শুরু হলেই শিশুর সব খাবারদাবার বন্ধ করে দিয়ে নির্জলা উপোসের যে সনাতন প্রথা, চিকিৎসাবিজ্ঞানের এই চরম উন্নতির দিনেও সেই প্রথার প্রতি আনুগত্য একেবারে বিরল নয়। শরীর থেকে জল বা খাবার প্রচুর পরিমাণে বেরিয়ে গেলে সেই অভাব পূরণ করাটাই হল চিকিৎসাবিজ্ঞানের বহুকালের বিধান। তবু বড়দের মতো শিশুদেরও পেট খারাপ হলেই জল বা খাবার নিয়ন্ত্রণে এমনকী বহু শিক্ষিত মানুষ আজও আগ্রহী। বাচ্চাদের যে কোনও ডায়রিয়াতেই চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া দরকার, হাতের কাছে ডাক্তার পাওয়া না গেলে সময় নষ্ট না করে চলে যেতে হবে সবচাইতে কাছের স্বাস্থ্যকেন্দ্র বা হাসপাতালে।মৃদু জলশূন্যতা থেকে ছোট শিশুর খুব তাড়াতাড়ি তীব্র জলশূন্যতার পরযায়ে চলে যেতে পারে। এরকম তীব্র জলশূন্যতায় বাচ্চার শিরায় নানা ধরনের ‘ফ্লুইড’ না দিতে পারলে বাচ্চাকে বাঁচানো প্রায় অসম্ভব। শিশুর ডায়রিয়া হলে অবশ্যই পালনীয় ১। বাচ্চা...
শিশুর বৃদ্ধি-বিকাশ আর খাদ্য-পুষ্টি

শিশুর বৃদ্ধি-বিকাশ আর খাদ্য-পুষ্টি

Cover Story, Health and Lifestyle, Kids Health
শিশুর বৃদ্ধি-বিকাশ আর খাদ্য-পুষ্টি   শিশুর বেড়ে ওঠা বা শিশুর শক্তি স্ফূর্তি প্রাণচাঞ্চল্য এসবের জন্যই দরকার বয়সে অনুপাতে উপযুক্ত পুষ্টি। পুষ্টি আসে নানা ধরনের খাবারদাবার থেকে। শিশুর সাভাবিক খাওয়ারদাওয়ার ব্যাপারটা এত গোলমেলে যে শিশুর জন্য এই পুষ্টিটুকু জোগান দিতে খাবার খাওয়ার পাশাপাশি ওদের চাই আরও অতিরিক্ত খাদ্য। শিশুর জন্য নানা ধরনের হেলথ ফুড বানান যাঁরা, তাদের দাবি এরকম। এঁরা দাবি করেন, শরীরের রোজকার প্রয়োজনীয় ক্যালোরির চাহিদা মেটাতে, প্রোটিন ফ্যাট কার্বোহাইড্রেটের পাশাপাশি অত্যাবশ্যক নানা ভিটামিন আর আয়রন ক্যালসিয়াম কপার জিংকের মতো খনিজ লবণ শরীরে জোগাতে এরকম হেলথ ড্রিংক শিশুকে সাহায্য করে অনেকটাই। এগুলো নিয়মিত খেলে শিশু অপুষ্টির শিকার হয না। বাড়ে তরতর করে, শরীরমনের বিকাশ হয় দ্রুততর। বৃদ্ধি বলতে শিশুর বহিরঙ্গ বেড়ে ওঠা। আকারে, আয়তনে শারীরিকভাবে বেড়ে উঠতে থাকা। আর বিকাশ বলতে ...
শিশুর কৃমি হলে করনীয়

শিশুর কৃমি হলে করনীয়

Cover Story, Health and Lifestyle
  শিশুর পেটে কৃমি সমস্যা চিরন্তন। শিশুর কৃমি রোগ হলে শিশুরা খেতে চায় না, পেট ফেপে থাকে এবং খাবার সময় বমি করতে চায়। শিশুর কৃমি হলে করনীয় কি জানেন? শিশুর কৃমির ঔষধ এবং বাচ্চাদের পেটে কৃমি হলে করনীয় কি তা জানিয়েছেন হলি ফ্যামিলি রেড ক্রিসেন্ট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল এর সহযোগী অধ্যাপক,ডা. সজল আশফাক। তাহলে জেনে নিন শিশুর কৃমি দূর করার উপায় কি। শিশুর কৃমির লক্ষণ শিশুর পেটব্যথা হবে শিশুরা খেতে চাইবে না শিশুর পেট ফাঁপা থাকবে বাচ্চাদের কৃমির লক্ষন হল খাবার সময় বা অন্য সময় বমি বমি ভাব করবে শিশুদের কৃমির ঔষধ খাওয়ার নিয়ম শিশুর কৃমির চিকিৎসা করার আগে পেটে কৃমি হয়েছে নিশ্চিত হওয়া দরকার। প্রয়োজনে শিশুর পায়খানা পরীক্ষা করে দেখতে পারেন। শিশুর কৃমির চিকিৎসায় মেবেন অথবা আরমক্স সিরাপ ১ চামচ করে সকাল এবং রাতে ৩ দিন খাওয়ানো যবে। ২ বছরের কম বয়সী বাচ্চাদের আলবেন (২...

Please disable your adblocker or whitelist this site!

error: Content is protected !!