Monday, February 6
Shadow

সাধারণ জ্ঞান

সঙ্গীসাথী পশুপাখি : প্রকৃতির প্রতি বঙ্গবন্ধুর ভালোবাসা

সঙ্গীসাথী পশুপাখি : প্রকৃতির প্রতি বঙ্গবন্ধুর ভালোবাসা

Education, সাধারণ জ্ঞান
তাঁকে জেলে যেতে হয় কয়েক দফা। এই ছাড়া পান তো আবার বন্দি। কখনো দিন কাটে হাজারো কয়েদির সঙ্গে-গল্পকথায়, রাজনীতিতে। আবার কখনো দিন-রাত্রি মিলেমিশে এক হয় অন্ধকার কুঠুরিতে। সময়কাল ১৯৬৬-১৯৬৯ সাল। বন্দিদশায় থেকেও এ মহামানব তাঁর মমতার ডালি মেলে ধরেছিলেন প্রকৃতির প্রতি। কারাবন্দি জীবনে প্রকৃতির সঙ্গে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের যে একাত্মতা ছিল, সেই আলোকছটা নিয়েই এ আয়োজন- জুন ১৯৬৬। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের রাজবন্দী বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। মাসের শুরুর দিকে জেলখানায় ছিল না কথা বলার মতো সঙ্গী। সময়ও কাটত না। মাটির প্রতি যাঁর অগাধ টান, তাঁর সখ্যতা তো মাটির সঙ্গেই হবে। ‘লাউয়ের দানা লাগাইয়াছিলাম, গাছ হয়েছে। ঝিংগার গাছও বেড়ে উঠেছে। ফুলের বাগানটিকে নতুন করে সাজাইয়া গোছাইয়া করতে শুরু করেছি... নতুন জীবন পেয়েছে ফুলের গাছগুলি।’ জেলখানার ওয়ার্ডে ছিল ছোট ছোট মাঠ। বঙ্গবন্ধু উদ্যোগ নিয়ে সেখানে লাগালেন ...
নাসার আর্টেমিস মিশনের বিস্তারিত : মানুষ আবার চাঁদে যাবে?

নাসার আর্টেমিস মিশনের বিস্তারিত : মানুষ আবার চাঁদে যাবে?

Tech news, সাধারণ জ্ঞান
১৯৭২ সাল। সর্বশেষ অ্যাপোলো মিশনে চাঁদের বুকে হেঁটে আসেন নভোচারী জিন কার্নান। ফেরার সময় বলেছিলেন, বেশি দিন অপেক্ষা করতে হবে না, আবার আসছি চাঁদে। কিন্তু হায়! গুনে গুনে পেরিয়েছে ৫০ বছর। কোনো এক অভিমানে নাসা আর কাউকে পাঠায়নি চাঁদে। অবশেষে যেন মান ভাঙতে চলল। চাঁদের পানে রওনা দিয়েছে আর্টেমিস-১। ভেতরে কোনো নভোচারী না থাকলেও রাশভারী এ মিশনের খুঁটিনাটি সব ঠিকঠাক থাকলে পরের কোনো এক মিশনেই আবার কেউ না কেউ হাঁটবে চাঁদের বুকে। নামের নেপথ্যে নাসার চন্দ্রাভিযানের নাম ছিল অ্যাপোলো। গ্রিক মিথোলজি মতে, তিনি মোটামুটি সবকিছুরই দেবতা। সেই অ্যাপোলোর যমজ বোন আর্টেমিসের জমিদারির সীমানায় আবার চাঁদও আছে। এ কারণেই এবার নাসার রকেটের এমন নাম। আবার আর্টেমিসের সামনে যে নভোযানে ভবিষ্যতে মানুষ চড়বে সে অংশটার নাম ওরিয়ন। এখানেও আছে গ্রিক পুরাণ। ওরিয়ন হলো পোসাইডনের শিকারি পুত্র। সরল কথায়—আর্টেমিসে ভর ক...
সুখের রসায়ন

সুখের রসায়ন

সাধারণ জ্ঞান
প্রতিনিয়ত আমাদের জীবনে নানা ধরনের ঘটনা ঘটে যার জন্য আমরা সুখী হই অথবা দুঃখ পাই। তবে সব ঘটনার মধ্যে অনেক ঘটনা ঘটে যা আমাদের মস্তিষ্ককে সুখের অনুভূতি দেয়। আমরা ভেসে যাই সুখের ভেলায়। আচ্ছা আপনি কি কখনো ভেবেছেন এই সুখ আমাদের মস্তিষ্কে আসলে কিভাবে তৈরি হয়? আমার মনে হয় আপনার উত্তর না! আসলে আমাদের মস্তিষ্কে সুখের যে অনুভূতি তৈরি হয় সেটি এমনি এমনি তৈরি হয় না। আমাদের মস্তিষ্কে সুখের অনুভূতি তৈরির পেছনে রয়েছে দারুন রাসায়নিক ক্রিয়া কৌশল। আমাদের মস্তিষ্কে প্রধানত চার ধরনের হরমোন নিঃসৃত হয় যার মাধ্যমে আমরা সুখের অনুভূতি পাই। হরমোন গুলো হলো ডোপামিন, অক্সিটোসিন, সেরোটোনিন ও এন্ডরফিন। তার মানে এটি স্পষ্ট যে আমাদের সুখানুভূতি আসলে রসায়নেরই কারিশমা।  এবার তাহলে জেনে নেওয়া যাক কোন হরমোন কিভাবে আমাদের মস্তিষ্কে সুখের অনুভূতি তৈরি করে।    ডোপামিন এটি একটি রাসায়নিক যৌগ যা ক্যাটিকল অ্যামিন...
কীভাবে কাজ করে এমআরআই : ম্যাগনেটিক রেজোনেন্স ইমাজিং

কীভাবে কাজ করে এমআরআই : ম্যাগনেটিক রেজোনেন্স ইমাজিং

Education, জীববিজ্ঞান, সাধারণ জ্ঞান
অত্যন্ত শক্তিশালী চুম্বক ব্যবহার করে মানবদেহের নিখুঁত ত্রিমাত্রিক মানচিত্র বের করার প্রযুক্তি হচ্ছে এমআরআই। কম্পিউটেড টোপোগ্রাফি স্ক্যান (সিটি স্ক্যান)-এর চেয়েও এমআরআই শরীরের টিস্যুর পরিপূর্ণ ছবি তোলে। এতে কোনো এক্স-রে ব্যবহার করা হয় না। শক্তিশালী চৌম্বক ক্ষেত্রের সঙ্গে রেডিও তরঙ্গ পাঠানো হলে শরীরের ভেতরকার তরল অংশের প্রোটন কণাগুলো সুবিন্যস্ত আকারে নিজেদের সাজিয়ে নেয়। পরে চৌম্বক ক্ষেত্র দূর করা হলে কণাগুলো আবার আগের অবস্থায় ফিরে যায়। এই সময় একটি রেডিও সংকেত তৈরি হয়। যা সনাক্ত করার পরই কম্পিউটারে তৈরি হয় ভেতরের ছবি। মার্কিন গবেষক ড. রেমন্ড ডামাডিয়ান, ড. ল্যারি মিনকফ ও ড. মাইকেল গোল্ডস্মিথ সাত বছর গবেষণা করে তৈরি করেছেন এ প্রযুক্তি। তারা প্রথম এমআরআই স্ক্যান করেছিলেন ১৯৭৭-এর ৩ জুলাই। এমআরআই স্ক্যানের সময় আশেপাশে চৌম্বক জাতীয় বস্তু একেবারেই নিষিদ্ধ। টিউবের ভেতর আস্ত ট্রলিসহ টেনে নেও...
৩০টি গুরুত্বপূর্ণ সাধারণ জ্ঞানের প্রশ্ন ও উত্তর

৩০টি গুরুত্বপূর্ণ সাধারণ জ্ঞানের প্রশ্ন ও উত্তর

admission, Education, চাকরির পরীক্ষার প্রশ্ন, ষষ্ঠ শ্রেণি, সাধারণ জ্ঞান
৩০টি গুরুত্বপূর্ণ সাধারণ জ্ঞানের প্রশ্ন ও উত্তর   ১. জীবের সমস্ত শক্তি উৎপাদন হয় একটি বিশেষ কোষীয় অঙ্গানু থেকে, সেটি কী? উত্তর - মাইটোকন্ড্রিয়া।   ২. একটি বিশেষ কোষীয় অঙ্গানুর কারনে উদ্ভিদ  নিজের খাদ্য নিজে তৈরি করতে পারে আবার একই অঙ্গানুর কারনে উদ্ভিদ সবুজ রঙ্য়ের ও হয়ে থাকে। সেটি কি? উত্তর - ক্লোরোপ্লাস্ট।   ৩. কোমল পানীয়ের বোতল খুললেই শব্দ করে বুদবুদ বের হওয়ার কারণ কী? উত্তর - কারণ কোমল পানীয় হচ্ছে তরল - গ্যাস দ্রবণ। এতে অনেক উচ্চচাপে তরলের সাথে গ্যাসের মিশ্রণ করা হয় তাই, বোতল খুললেই শব্দ করে বুদবুদ আকারে গ্যাস বের হয়ে আসে।   ৪. সাগরের লবনাক্ত পানি থেকে কিভাবে আমাদের দানা দানা খাদ্যলবন প্রস্তুত করা যায়? উত্তর - স্ফটিকীকরণের মাধ্যমে।   ৫. আগ্নেয়গিরির উদগীরণে যে গলিত লাভা বের হয় তার উৎস কোথায়? উত্তর - পৃথিবীর ভেতরের অংশ তিনটি ভাগে বিভক্ত। এর মধ্যে...
চাকরিতে সফল হতে চাইলে মেনে চলুন নিয়মগুলো

চাকরিতে সফল হতে চাইলে মেনে চলুন নিয়মগুলো

চাকরি, সাধারণ জ্ঞান
সব কাজেই বাধা বিপত্তি থাকবে। প্রতিযোগীতার বাজারে নিজের অবস্থান ধরে রাখার জন্য আমাদের পাঠ্যপুস্তকের বাইরেও কিছু যোগ্যতা থাকা এখন অত্যাবশ্যকীয় হয়ে গেছে। তবে কিছু দক্ষতা যদি অর্জন করা যায় বা নিজে যদি একটু পালটে কাজের সাথে খাপ খাওয়ানো যায় তবে সেই কাজ থেকে সফলতার প্রত্যাশা করা যেতেই পারে। কারন বর্তমান সময়ে পেশাগত ক্ষেত্রে মানুষের মুল্যায়ন তার গুণাবলীর উপর ভিত্তি করেই হয়। চট করে কিছু বলে বিষয় দেখে নেয়া যাক যা কর্মক্ষেত্রে বন্ধুর মত সহযোগীতা করবে। লিখেছেন তানিন রহমান উদ্যমী হতে হবে।  উদ্যোগ নিয়ে কাজ এগিয়ে নিতে হবে। যে কাজটা আমি আগে করে ফেলতে পারি তা করে ফেলতে হবে।  নিজেই নিজের মূল্যায়ন করতে হবে। ভুল হলে তা স্বীকার করার সৎ সাহস থাকতে হবে। নিজের কাজের মান যাচাই করতে হবে। এতে কাজের গুনগত মান উন্নত হয়। শেখার মনমানসিকতা থাকতে হবে।  যে ভুল থেকে শিক্ষা নেয় সে তার কর্মক্ষেত্রে কোনদিন ব্...
বিজ্ঞানের বিস্ময়কর তথ্য : বিজ্ঞান সাধারণ জ্ঞান ১

বিজ্ঞানের বিস্ময়কর তথ্য : বিজ্ঞান সাধারণ জ্ঞান ১

Education, সাধারণ জ্ঞান
পৃথিবীর অক্সিজেনের বড় সরবরাহটা কিন্তু কোনো গহিন অরণ্য থেকে আসে না। আসে সমুদ্র থেকে। ন্যাশানল ওশেনিক সার্ভিসের তথ্যমতে, মহাসাগরের জলজ গাছ, প্লাঙ্কটন, সি-উইড ও অন্যান্য ফটোসিনথেসাইজার থেকে পৃথিবীর অর্ধেকেরও বেশি অক্সিজেনের সাপ্লাই আসে। বড় আকারের প্রোটিন ওষুধ মুখে খাওয়ার বড় সমস্যা হলো এ ধরনের ওষুধ মিউকাসের বাধা পেরোতে পারে না। তাই ইনসুলিনের মতো আরও অনেক বায়োলজিক ড্রাগ ইনজেকশনের মাধ্যমে দিতে হয়। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের এমআইটি এমন এক রোবটিক ক্যাপসুল আবিষ্কার করেছে, যা পরে এ সমস্যা কাটিয়ে উঠতে পারবে। ক্যাপসুলটি ঘুরতে ঘুরতে মিউকাসের বাধা অতিক্রম করতে সক্ষম। এমনকি এটা যখন ক্ষুদ্রান্ত্রে পৌঁছাবে, তখন এর সঙ্গে থাকা কোষগুলোতে ওই প্রোটিন-ওষুধ পৌঁছে যেতে পারবে। সায়েন্স রোবটিকস জার্নালে প্রকাশিত গবেষণা নিবন্ধে বলা হয়েছে, এ পদ্ধতিতে শরীরে আরও কার্যকরভাবে ইনসুলিন পৌঁছানো যাবে। মানুষের পাকস্থলীর ...
ষষ্ঠ ও শ্রেণির জন্য কুইজ প্রশ্ন

ষষ্ঠ ও শ্রেণির জন্য কুইজ প্রশ্ন

Education, Question Bank, মাধ্যমিক, ষষ্ঠ শ্রেণি, সাধারণ জ্ঞান
ষষ্ঠ ও শ্রেণির জন্য প্রযোজ্য। নিচের কুইজ প্রশ্নগুলোর উত্তর খুঁজে বের করো। এখানে শুধু প্রশ্ন দেওয়া আছে।   ১. ডিম, কলিজা, পনির এসব খাদ্য থেকে আমরা এক ধরনের ভিটামিন পেয়ে থাকি যা সাধারণত শরীরে জমা থাকে না। কী ভিটামিন পেয়ে থাকি?    ২. রুপা ২ মিনিটে ১২০ মিটার পথ অতিক্রম করতে পারে। তাহলে রুপার ত্বরণ কত?    ৩. নিপা এক ধরনের দ্রবণ তৈরি করলো যা কিছুটা দুধের মতো দেখতে এবং এর কণাগুলোর আকার ১ মাইক্রোমিটারের বেশি। দ্রবণটি কোন ধরনের?   ৪. একটি পৃষ্ঠে কত কোণে আলো আপতিত হলে এর প্রতিফলন কোণ ৬০ ডিগ্রি হবে?    ৫. নলকূপের হাতল কোন শ্রেণির লিভার?    ৬. আমাদের শ্রবণ সংবেদী কোষ কোথায় থাকে?    ৭. মটরশুঁটি গাছের কান্ড কী রকম?   ৮. আইসক্রিম তৈরির একটি উপাদান অ্যালজিন। এটি কোথা থেকে পাওয়া যায়?    ৯. রক্ত কোন ধরনের টি...
মানবদেহের বিস্ময়কর তথ্য! Human Body Interesting Facts

মানবদেহের বিস্ময়কর তথ্য! Human Body Interesting Facts

Education, চাকরির পরীক্ষার প্রশ্ন, সাধারণ জ্ঞান
Human body Interesting Facts The total length of DNA in our body is 575 billion kilometers. It is equal to the distance traveled from the earth to the sun more than 3662 times. And if the information contained in DNA were recorded, it would be equivalent to a giant encyclopedia of 900 volumes. Where the number of pages of each volume will be 500. The total number of cells in our body is 37.2 trillion (1 trillion = one lakh crore). There are 11 crore sensory receptors. There are 30 trillion red blood cells (RBC). The number of neurons in the brain alone is 10,000 billion. The total blood vessels in the body are 42 billion, which is 97000 km. long Think about it! A hand-long headphone gets tangled even if carefully placed. But your body is 97000 km. Blood vessels are never entan...

Please disable your adblocker or whitelist this site!

error: Content is protected !!